মুড়ি খাওয়ার উপকারিতা কি কি

মুড়ির ক্ষতিকর দিক, গুয়া মুড়ির উপকারিতা, শুকনো মুড়ি খাওয়ার অপকারিতা, চানাচুর খাওয়ার উপকারিতা, মুড়ি খেয়ে ওজন কমানোর উপায়, মুড়ির পুষ্টিগুণ, গর্ভাবস্থায় মুড়ি খাওয়ার উপকারিতা, খই এর উপকারিতা,
মুড়ি খাওয়া কি ভালো? মুড়িতে কি কি পুষ্টিগুন রয়েছে? সকালে খালি পেটে মুড়ি খেলে কি
হয়? প্রিয় দর্শক বাঙালির ঐতিহ্যবাহী চিরচেনা এবং দামে সস্তা এই খাবার নিয়ে অজানা
সকল তথ্য আজকে আপনাদেরকে এই পোস্টে বলবো । শুরুতে বলছি মুড়ি খেলে শরীরের কি উপকার
হয় ।
মুড়ি খেলে কি কি হয় জেনে নিনঃ
  • ত্বকের যত্নে
  • মস্তিষ্ক উন্নতিতে সাহায্য করে
  • হাড়কে শক্ত করে
  • রক্তচাপের সমতা রক্ষা করে
  • শক্তি বৃদ্ধি করে
  • হজমে সহায়তা করে

হজমে সহায়তা করে

মুড়িতে রয়েছে ডায়েটরি ফাইবার, এটি আমাদের হজমে সাহায্য করে । সবচেয়ে বড় কথা হলো
মুড়ি আমাদের অন্ত্রের অবস্থা ঠিক রাখতে সাহায্য করে । একই সঙ্গে গবেষণায় দেখা
গেছে সকালে খালি পেটে মুড়ি খেলে মেটাবলিজম এর উন্নতি হয়, পেট পরিষ্কার হয়, হজমে
সাহায্য করে এটা ।

শক্তি বৃদ্ধি করে

মুড়িতে রয়েছে উচ্চ মাত্রার শর্করা । এটি আমাদের তাৎক্ষণিক শক্তি বৃদ্ধি করতে
সাহায্য করে । দৈনন্দিক কাজে সক্রিয় থাকতে জ্বালানি হিসেবে যেকোন সময় মুড়ি খাওয়া
যেতে পারে ।

রক্তচাপের সমতা রক্ষা করে

মুড়ি খুব সামান্য পরিমাণ সোডিয়াম কনটেন্ট প্রসারিত করতে সাহায্য করে বিধায় এটি
খাবার পর রক্তচাপের মাত্রা নিয়ন্ত্রণে আসতে সাহায্য করে । মুড়ি খেলে ব্লাড়
প্রেসার নিয়ন্ত্রনে থাকে । এবং হার্ট অ্যাটাকের মত যেকোন ধরনের রোগকেও প্রতিরোধ
করতে পারে ।

হাড়কে শক্ত করে

মুড়ি পুষ্টি উপাদানের ঠাসা একটি খাবার । হালকা-পাতলা মুড়ি দেখে অনেকে হয়ত অনুমান
করতে পারেন, এটাতে তেমন কোন পুষ্টি নেই । মুড়ি ভিটামিন ডি, রাইবোফ্ল্যাভিন এবং
চমৎকার কিছু ভিটামিনের উৎস । এবং এতে রয়েছে ক্যালসিয়াম আয়রন এবং ফাইবার । তাই
মুড়ি খেলে হাড় ও দাঁত শক্ত হয় । ছোট শিশুকে সকালবেলায় মুড়ি খেতে দিতে পারেন অথবা
দিনের যেকোন সময় একটু মুড়ি খাওয়ানো শিশুর স্বা‌স্থের জন্য অনেক ভালো ।
See also  আজান দেওয়ার সঠিক নিয়ম এবং আজানের গুরুত্ব

মস্তিষ্ক উন্নতিতে সাহায্য করে

মুড়িতে রয়েছে নিউরোট্রান্সমিটার পুষ্টিগুন । ফলে মুড়ি খেলে মস্তিষ্কের স্নায়ু
উদ্দীপনাসহ বিভিন্ন স্বা‌স্থ্য উপকারিতা পাওয়া যায় । মস্তিষ্কের উন্নতি এবং
কংগ্রেটিব ফাংশনের উন্নতিতে সাহায্য করে মুড়ি ।

ত্বকের যত্নে

অবাক হবেন না, ত্বকের যত্নেও মুড়ি খুবই কার্যকরী । কিন্তু তা ব্যবহার করতে হবে
গুড়ো করে । মুড়ি গুঁড়ো করে ফেসপ্যাক তৈরি করে ত্বকে লাগাতে পারেন । এটা ব্রণ দূর
করতে সাহায্য করে । এছাড়াও মুড়ি খাওয়ার আরেকটি স্বাস্থ্য উপকারিতা হলো আগেই বলেছি
মুড়ি ওজন কমাতে পারে । এক্ষেত্রে খেয়াল রাখবেন বেশি মুড়ি একদম খাওয়া যাবেনা ।
একটা কথা বলি জাঙ্ক ফুড থেকে মুড়ি ভালো । কিন্তু পরিমান মতো মুড়ি ভালো । আপনি যদি
অত্যাধিক মাত্রায় মুড়ি খেয়ে ফেলেন এটা কি হবে? মুড়িতে থাকা উচ্চ মাত্রার এই
শর্করা আপনার রক্তে গ্লুকোজের মাত্রা বাড়িয়ে দিতে পারে । তাই পরিমিত মুড়ি খাবেন
আর হ্য, স্কুল কলেজের গেটের বাইরে মুড়ি মাখা বিক্রি এবং এই সকল মুড়ি খেলে তেমন
কোন উপকার নেই । কারণ এটাও এক ধরনের জাঙ্ক ফুড । তবে বাসায় পেঁয়াজ, শসা, গাজর
কুচি অল্প কাচা মরিচ আদা কুচি দিয়ে মুড়ি ভর্তা বানিয়ে খেতে পারেন । সেটা কিন্তু
হেলদি হবে ।
হালকা খাবার হিসেবে মুড়ি বেশ কার্যকর । এটির স্বাস্থ্য উপকারিতা অনেক বেশি । তাই
জাঙ্ক ফুড না খেয়ে মুড়ি খেতে পারেন ।
tag…
মুড়ির ক্ষতিকর দিক, গুয়া মুড়ির উপকারিতা, শুকনো মুড়ি খাওয়ার অপকারিতা,
চানাচুর খাওয়ার উপকারিতা, মুড়ি খেয়ে ওজন কমানোর উপায়, মুড়ির পুষ্টিগুণ,
গর্ভাবস্থায় মুড়ি খাওয়ার উপকারিতা, খই এর উপকারিতা,

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *